জীবন একমুখী গলি, স্বতন্ত্র যাত্রা

0
0

জীবন একমুখী গলি, স্বতন্ত্র যাত্রা
————————-

জীবন একমুখী গলি, আলো আঁধারি গলি, যেখানে সামনে যাওয়া ছাড়া নেই কোন উপায়; বা পিছনে ফেরার কোন সুযোগ;
নেই বাল্যকাল ফেরত পাওয়ার চমক
কিংবা কৈশোরের দুরন্তপনার পুনর্মিলন!

সামনে শুধু আগামী, আর তাকেই বরণ করার গত্যান্তর নেই কারো। সামনে রয়েছে আগামীর আলো কিংবা বার্ধক্যের চিরন্তনতা।

জীবন পৌরাণিক গল্পের কোন কাহিনী-কল্প নয়, কিংবা টেনিসনের কবিতার টিথোনাস চরিত্রের অমরত্ব লাভের পর অমর, অসহ্য বার্ধক্য থেকে মুক্তি পেতে মরণ-আকুতি নয়!
জীবন বাস্তব এক উপাখ্যান।

এ সম্মুখপানে চলা জীবনের সামনে হয়ত আকাঙ্খিত আলোর পুরোটারই দেখা মিলবে বা আংশিক…
কিন্তু আলোকিত পথ পাওয়ার আশা নিয়ে দুর্গম, কন্টকময় এ পথ পাড়ি দেই, দিতে হয়; হাতরিয়ে, কিংবা দৌড়ে….

আমাকে, আপনাকে, সবাইকে।

জীবনের এ চলার পথে অনেকের সাথে দেখা হয়, হবে। কেউ কিছুদূর পর্যন্ত থাকবে, কেউ বহুদূর আর কেউবা শেষ অবধি।
সম্পর্কের গভীরতা বা সংক্ষিপ্ততার এ ব্যবধান বড়ই অদ্ভুদ। এ প্রসঙ্গে মাওলানা জালালুদ্দিন রুমির একটি কথা প্রায়শই মনে পড়ে:
“এটা তোমার পথ, তোমার একার, অনেকেই তোমার সাথে হাঁটবে কিন্তু কেউ তোমার জন্য হাঁটবেনা”।

একটা সময় দেখবন, আসলে কেউ কারো জন্য হাঁটেনা; যার যার গন্তব্য ভিন্ন, হয়তো মহাসড়ক এক: অলিগলি ভিন্ন, হয়তো মূল সড়কটা শুধু এক।

এতক্ষণ যাকে পাশে পেয়ে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিবে ভেবেছো, সে হঠাৎ এক স্টেশনে নেমে যায়; সম্ভিত ফিরে পেয়ে হয়তো ভাবো, আহা, প্রথমেই যদি না বলা কথা গুলো বলে দিতে পারতাম! সে যে মাঝপথে ‘নাই’ হয়ে যাবে, তা যদি জানতাম!

এভাবে মানুষের এ জীবন যেন এক যাত্রা- গন্তব্য অজানা। তবে যেতে হয়। থেমে থাকা যায় না।
বৃষ্টি থেমে গেলে ছাতাটাকেও বোঝা মনে হয় ৷
এ যাত্রার সাফল্য হয়তো গন্তব্যে পৌঁছানো নয়, বরং বিরতিহীন যাত্রাই…

Oliver Goldsmith এর কথাটা আরো কঠোর, আরো নির্দয়, তবে আবে বাস্তব:
“Life is a journey that must be traveled no matter how bad the roads and accommodations.”

কোন অজুহাত বা কোন অভিযোগ নয়, কোন অনুযোগ বা কোন ঘৃণা- দুঃখপ্রকাশের সুযোগ এ জীবনে নেই। এ পথে তুমি অনেক সৎ, সত্যবাদী যেমন দেখবে, অনেক অনেক মেকি, সত্যের শুভ্র, সুন্দর রং দিয়ে সাজিয়ে মিথ্যা বলার মতো হরেক রকম ভন্ড, শট, কপট সহযাত্রী তুমি পাবে। প্রতিনিয়ত তুমি আবিষ্কার করবে ‘ the most surprising creature on earth’ মানুষকে।

আবারো বলছি, এ যাত্রা তোমার: শুধুই তোমার; অভিনয়, ডাবল স্ট্যান্ডার্ড আচরণ, চোখের সামনে অদ্ভুদ সুন্দর অভিনয়কারীদের সাথে নিয়েই হয়তো অনেকদূর যেতে হবে। মাঝপথে তারা তাদের গন্তব্যে যাত্রা শেষ করতে পারে, না ও করতে পারে। তবে তাতে বিচলিত বা স্বস্তির ঢেকুর তোলার সময় তোমার কই?
এ যে অতি সংক্ষিপ্ত, অতি স্বল্পমেয়াদী এক যাত্রা, প্রিয়জন।

—–
মোঃ নাজিম উদ্দিন
সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২১

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here